মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১



 অনলাইন ডেস্ক

Shares: 109

আপডেট: ২০২১-০১-০৪





চলন্ত বাসে ধর্ষণচেষ্টা: চালকের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

চলন্ত বাসে ধর্ষণচেষ্টা: চালকের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

সুনামগঞ্জে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া বাসচালক শহীদ মিয়ার (২৫) তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুরে পুলিশ তাঁকে সুনামগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাগিব নূরের আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। বিচারক তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সুনামগঞ্জে পুলিশের কোর্ট পরিদর্শক আশেক সুজা মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।ঘটনার সাতদিন পর গত শনিবার সকালে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে শহীদ মিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তিনি ঢাকা থেকে একটি বাসে করে সুনামগঞ্জে আসেন। গ্রেপ্তারের পর আবার ওই দিনই তাঁকে ঢাকায় সিআইডি কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করাহয়। সেখানে ভুক্তভোগী ছাত্রী শহীদ মিয়াকে শনাক্ত করেন। জিজ্ঞাসাবাদের পর শহীদকে সুনামগঞ্জের দিরাই থানা-পুলিশেরকাছে হস্তান্তর করে সিআইডি।

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার দিরাই পৌর শহরে গত ২৬ ডিসেম্বর বিকেলে চলন্ত বাসে উচ্চমাধ্যমিক প্রথম বর্ষের ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান বাসের চালক ও তাঁর সহকারী। নিজেকে রক্ষা করতে গিয়ে বাস থেকে লাফ দেন ওই ছাত্রী। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে তাঁকে সিলেটে এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি বাড়িতে আছেন।

ঘটনার রাতেই দিরাই থানায় ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বাসের চালক শহীদ মিয়া, সহকারী আবদুর রশিদসহতিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

শহীদের বাড়ি সিলেট নগরের জালালাবাদ থানার মৌলারগাঁও এলাকায় আর আবদুর রশিদ সুনামগঞ্জের ছাতকের কামরাঙ্গীরচর গ্রামের বাসিন্দা। ২৭ ডিসেম্বর রাতে ছাতকের বুরাইয়া গ্রাম থেকে আবদুর রশিদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গ্রেপ্তারের পর আবদুর রশিদ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।